বেসরকারি হজ প্যাকেজ ২০২৩ । হজ্জ করতে কত টাকা লাগে

0
226

হজ্জ করতে ঠিক কত টাকা লাগে এটির সঠিক জবাব হচ্ছে ৪,৬২,১৫০ টাকা হতে ৬,৮৩,০১৫ টাকা পর্যন্ত ব্যয় হতে পারে যদি আপনি সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ্জ করতে যান। বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন ধরনের হজ্জ প্যাকেজ ঘোষনা করে থাকে। আপনি যদি বেসরকারি ভাবে হজ্জ করতে চান হতে আপনি খরচ বেশি পড়বে ৪-৭ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ব্যয় হতে পারে।

হজ্জ করতে হলে ন্যূনতম বয়স ১৮ হতে হবে। ২০২৩ সালে হজ্জ করার সর্বোচ্চ বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ বছর। ৩০ দিনের ভিসার মেয়াদে হজ্জ করতে যেতে দেওয়া হয়। উমরাহ ভিসা সাধারনত ১৪ দিন, ২১ দিন, ৩০ দিন ও ৪৫ দিনের জন্যে ইস্যু করা হয়। তবে উমরাহ পালন করতে প্রকৃতপক্ষে ২ থেকে ৩ দিনের বেশী সময় লাগেনা। পবিত্র হজ্জ পালনে সর্বমোট প্রায় ১৫ দিন লাগতে পারে। হজ্জের মধ্যে রয়েছে পাঁচ থেকে ছয় দিনের মধ্যে মক্কা এবং তার আশেপাশে সংঘটিত একাধিক অনুষ্ঠান।

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রী নিবন্ধন- বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ২০২৩ খ্রি. (১৪৪৪ হিজরি) সনে নিবন্ধনের জন্য প্রাক-নিবন্ধনের সময় জমাকৃত ৩০,৭৫২.০০ (ত্রিশ হাজার সাতশত বায়ান্ন) টাকা হতে জমজম পানি বাবদ – (১৫.০০ সৌ.রি.)=425.85 (চারশত পচিশ টাকা পচাশি পয়সা) টাকা, ১% অতিরিক্ত বাড়ি ভাড়া বাবদ ৬২ সৌ.রি. +১৫% ভ্যাট = ২০২৪.২০ (দুই হাজার চব্বিশ তিয়াত্তর টাকা বিশ পয়সা) টাকা, সার্ভিস চার্জ বাবদ ৮০০.০০ টাকা, হজযাত্রীদের কল্যাণ তহবিল (আপৎকালীন ফান্ড) বাবদ ২০০.০০ (দুইশত) টাকা, প্রশিক্ষণ ফি বাবদ ৩০০.০০ (পাঁচশত) টাকা, প্রাক নিবন্ধন ফি বাবদ ১০০০.০০ টাকা সর্বমোট (425.85+2024.204800.00 ২০০,০০+৩০০.০০+1000.00) = ৪৭৫০.০৫ টাকা কর্তন করে অবশিষ্ট (৩0,752.00 4750.05) = 26001.95 টাকা নিবন্ধনকারী হজ এজেন্সির মোট হজযাত্রী সংখ্যার বিপরীতে সৌদি আরবে প্রদেয় বিভিন্ন সার্ভিস চার্জ ও পরিবহন ফি IBAN এর মাধ্যমে পরিশোধের নিমিত্ত নিবন্ধনকারী এজেন্সির অনুকূলে হজ এজেন্সির হজ কার্যক্রম সংক্রান্ত ব্যাংক হিসাবে ফেরৎ প্রদান করা হবে।

এজেন্সির সাথে হজযাত্রীর চুক্তি অনুযায়ী প্যাকেজ মূল্যের অবশিষ্ট অর্থ নিবন্ধনকারী সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির নির্ধারিত ব্যাংক একাউন্টে জমা প্রদান করে নিবন্ধন সম্পন্ন করবেন। অর্থ প্রাপ্তি নিশ্চিত হলেই সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির ইউজার হজযাত্রীকে পিলগ্রিম আইডি প্রদান করবেন। উল্লেখ্য, সংশ্লিষ্ট এজেন্সি বিমান ভাড়া বাবদ অর্থ সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইন্স বরাবর টিকিটের জন্য পে-অর্ডার ব্যতীত উত্তোলন করতে পারবে না।

বেসরকারি হজ প্যাকেজ ২০২৩ । হজ্জ করতে কত টাকা লাগে?

বেসরকারি হজ প্যাকেজ ২০২৩ | বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীদের প্রাপ্য সুবিধা ও শর্তসমূহ
হজ ভিসা
সৌদি আরবে যাওয়া-আসার বিমান টিকেট
মক্কা-আল-মোকাররমায় পবিত্র মসজিদুল হারাম এর বাহিরের চত্ত্বর হতে সর্বোচ্চ ২০০০ মিটার ও মদিনা আল মনোয়ারায় পবিত্র মসজিদে নববী থেকে সর্বোচ্চ ১০০০ মিটারের মধ্যে আবাসন
সাধারণ প্যাকেজের হজযাত্রীগণ সৌদি আরবে কমপক্ষে ৩০ দিন তবে ৪২ দিনের বেশি অবস্থান করতে পারবেন না।
মদিনায় অবস্থান সৌদি বাড়ি ভাড়ার ভিত্তিতে ৮ দিন হতে পারে
কক্ষ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত হবে
৪-৬ জনের জন্য ১টি সংযুক্ত/কমন গোসলখানা/টয়লেট এর ব্যবস্থা থাকবে
হোটেল/বাড়ির প্রতি কক্ষে/ফ্লোরে রেফ্রিজারেটর এর ব্যবস্থা থাকবে
প্রতি হাজীর জন্য মিনার তাঁবুতে ম্যাট্রেস, চাদর, কম্বল ও বালিশ এর ব্যবস্থা থাকবে
আরাফায় অবস্থানের জন্য তাঁবুর ব্যবস্থা থাকবে
মুজদালিফায় নিজ ব্যবস্থাপনায় অবস্থান করতে হবে
মিনায় এবং আরাফায় মোয়াল্লেম কর্তৃক খাবার পরিবেশন করা হবে
জেদ্দা-মক্কা, মক্কা- মিনা-আরাফা-মুজদালিফা-মিনা-মক্কা, মক্কা-মদিনা, মদিনা- জেদ্দা এবং মক্কা-জেদ্দায় যাওয়া-আসার জন্য পরিবহন সুবিধা প্রদান করা হবে
মক্কা, মদিনা, মিনা ও জেদ্দায় বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বিনামূল্যে ঔষধ ও প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে
নিয়মিত সেবন করতে হয় এরূপ ঔষধ ও চিকিৎসা সামগ্রী (ব্লাড সুগার টেস্টের স্ট্রিপ, নিডিল, ইনসুলিন, ডায়াবেটিক ও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের ঔষধ) অবশ্যই (কমপক্ষে ৪৫ দিনের জন্য) সঙ্গে নিতে হবে। চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্রসহ এরূপ ঔষধ ও চিকিৎসা সামগ্রী মেইন লাগেজে বহন করতে হবে।
হজ ফ্লাইটের পূর্বে হজ ক্যাম্প (ঢাকা আশকোনা) ডরমিটরিতে বিনামূল্যে থাকার ব্যবস্থা থাকবে (হজক্যাম্প ক্যাফেটেরিয়াতে নিজ খরচে খাবার ব্যবস্থা থাকবে)
হজযাত্রী ও গাইডদের প্রয়োজনীয় প্ৰশিক্ষণ প্রদান করা হবে
হজযাত্রীকে হজ ও ওমরাহ নির্দেশিকা, আইডি কার্ড, লাগেজ ট্যাগ ইত্যাদি সরবরাহ করা হবে
হজ ক্যাম্প ঢাকায় হজযাত্রীর বোর্ডিং পাস ও সিকিউরিটি চেক-ইন এবং বাংলাদেশ অংশের ইমিগ্রেশন হবে
হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, ঢাকায় মক্কা রোড সার্ভিস এর অধীনে হজযাত্রীদের সৌদি আরবের প্রি-এরাইভ্যাল ইমিগ্রেশন সম্পন্ন হবে।
মক্কা ও মদিনায় হুইল চেয়ার ব্যবহারের প্রয়োজন হলে কাউন্সেলর (হজ)/সহকারী মৌসুমী হজ অফিসারের নিকট ৩০০ (তিনশত) সৌদি রিয়াল জামানত হিসেবে জমা রেখে হজ মিশন হতে হুইল চেয়ার সংগ্রহ করা যাবে। হুইল চেয়ার নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ব্যবহার করতে হবে। ব্যবহারের পর হুইল চেয়ার ফেরত প্রদানকালে জামানত হিসেবে প্রদত্ত ৩০০ (তিনশত) সৌদি রিয়াল ফেরত প্রদান করা হবে।
সাহায্যকারী হিসেবে হজকর্মী প্রয়োজন হলে প্রতিদিন ১১০-১২০ সৌদি রিয়াল মজুরীতে কাউন্সেলর (হজ)/সহকারী মৌসুমী হজ অফিসার এর মাধ্যমে গ্রহণ করা যাবে।
হজযাত্রীকে কুরবানি বাবদ আনুমানিক ১০০০.০০ সৌদি রিয়াল পৃথকভাবে সঙ্গে নিতে হবে।
মিনা-আরাফাহ-মুযদালিফায় হুইল চেয়ার ও সাহায্যকারী জন্য ৩৫০০ সৌদি রিয়াল মোয়াল্লেম অফিসে জমা প্রদান করতে হবে (অফেরতযোগ্য)।
হজ এজেন্সিসমূহ হজযাত্রীগণের বাংলাদেশ-জেদ্দা/মদিনা, জেদ্দা/মদিনা-বাংলাদেশ সরাসরি যাতায়াত নিশ্চিত করবে।
দেশে ফেরার পর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হজযাত্রীকে ৫ লিটার জমজম পানি সরবরাহ করা
হবে।
নিবন্ধন বাতিল / প্রাক-নিবন্ধন ও নিবন্ধন স্থানান্তর/প্রতিস্থাপন প্রক্রিয়া কি?
বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় নিবন্ধিত কোন ব্যক্তির লিখিত অনুরোধ/সম্মতির প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট এজেন্সি ব্যাংকের মাধ্যমে অন-লাইনে তার নিবন্ধন বাতিল করবে। নিবন্ধন বাতিলের প্রেক্ষিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রাক-নিবন্ধনও বাতিল হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে, প্রাক-নিবন্ধনের জন্য জমাকৃত 30,752.০০ (ত্রিশ হাজার সাতশত বায়ান্ন) টাকার মধ্য হতে প্রাক-নিবন্ধন প্রসেস ফি ১,০০০.০০ (এক হাজার) টাকা কর্তন করে অবশিষ্ট ২৯,৭৫২.০০ (উনত্রিশ হাজার সাতশত বায়ান্ন) টাকা সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির ব্যাংক একাউন্টে মন্ত্রণালয় হতে ফেরত দেয়া হবে।

কোন প্রাক-নিবন্ধন হজযাত্রী স্বেচ্ছায় এজেন্সি পরিবর্তন করতে চাইলে প্রাক-নিবন্ধনকারী এজেন্সি এরূপ স্থানান্তরে বাধ্য থাকবে। প্রাক-নিবন্ধনকারী এজেন্সি ২০০০.০০ (দুই হাজার) টাকা সার্ভিস চার্জ কর্তন করতে পারবে। তবে কোটাপূরণ, সমন্বয় কিংবা অভিযোগের কারণে প্রাক-নিবন্ধন হজযাত্রী স্থানান্তর করা হলে হজযাত্রীর নিকট থেকে কোন সার্ভিস চার্জ আদায় করা যাবে না। অপরদিকে অপারেটিং লিড এজেন্সির কোটা পূরণের নিমিত্ত শুধুমাত্র নিবন্ধিত হজযাত্রী স্থানান্তর করা যাবে। প্রতিস্থাপন: (১) নিবন্ধিত কোনো হজযাত্রী মৃত্যুবরণ করলে সংশ্লিষ্ট সিভিল সার্জন বা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা কর্তৃক প্রদত্ত মৃত্যু সনদ হজ অফিস, ঢাকায় দাখিলপূর্বক শূন্য কোটায় প্রাক-নিবন্ধিত হজ পালনে ইচ্ছুক ব্যক্তিকে প্রতিস্থাপন করা যাবে, তবে এ ক্ষেত্রে মৃত ব্যক্তির পরিবারের সদস্য অগ্রাধিকার পাবে।

আপনার মন্তব্য জানান